কমলা লেবু, প্রায় সবারই পছন্দের একটি ফল। যার ঘ্রাণ সবাইকে দেয় চনমনে সজীব এক অনুভূতি, আর এর স্বাদ দেয় মুখে রুচি। কমলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’, যা আমাদের স্বাস্থ্য ও ত্বকের নানা উপকারে আসে। আবার অন্য ফলের মত শুধু কমলা নয়, এর খোসাও আমাদের বেশ উপকারে আসে। নিচে এ বিষয় বিস্তর আলোচনা করা হলোঃ

১. কমলা লেবু, বুড়িয়ে যাওয়া রূখে দেয়ঃ

কমলা তে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা মুখে লাবণ্য আনে। এবং দ্রুত কাজ করে। এর ফলে চেহারা থেকে বুড়োটে ভাব দূর হয়।

২. মুখের কালো ছাপ দূর ও উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করেঃ

কমলার খোসা কে বেটে দুধের সাথে মিশিয়ে ত্বকে নিয়মিত লাগালে ব্ল্যাকহেডস, মরা চামড়া, লোমকূপ, চোখের নিচে কালো দাগ, ড্রাই স্কিন দূর হয় এবং ত্বক হয় অধিক উজ্জ্বল।

৩. রৌদ্রে পুড়ে কালো হওয়া কমাতেঃ

রৌদ্রের ঝাঁজ এ দেখা যায় ত্বক কালো হয়ে পড়ে। আবার অনেক সময় উষ্ণ পানি তে ত্বক পুড়ে যায়। তা দূর করতেও কমলার খোসা বেশ উপকারী। দুধের সাথে খোসার মিক্সচার মেখে পাতলা করে পেস্ট তৈরি করে সেটা মুখে লাগালে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি ও রৌদ্রদগ্ধ, পোড়া দাগ দূর হয়।

৪. ত্বককে রাখে আর্দ্রতাঃ

কমলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি ও প্রাকৃতিক তেল। যা রাখে ত্বককে আর্দ্রক।

৫. চুলের যত্নে কমলা লেবু এর খোসাঃ

কমলার খোসা কে গুড়া করে সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে পরদিন সকালে চুলে লাগিয়ে রাখলে এবং পরে শ্যাম্পু করলে ড্যান্ড্রাফ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এটি কন্ডিশন ও মাথা পরিষ্কারকরণেও সহায়তা করে।

৬. অঙ্গপ্রত্যঙ্গ উজ্জ্বলতায়ঃ

কমলার খোসা শুকিয়ে তার মিক্সচার এর পেস্ট তৈরি করে লাগালে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ উজ্জ্বল হয়।

৭. মুখের দুর্গন্ধ দূর করতেঃ

কমলার খোসা অল্পক্ষণ চাবালে মুখের দুর্গন্ধ রোধ পায়। চুইঙ্গাম বা মাউথ ফ্রেশারার থেকে কমলার খোসা বেশি দীর্ঘস্থায়ী।

৮. চকচকে দাঁত পেতে কমলার খোসাঃ

কমলার খোসা দাঁতে ঘসলে হলদেটে ভাব দূর হয়। নিয়মিত ব্যবহারে দাঁত হয় চকচকে।

৯. ক্লান্তি দূর করণেঃ

ঘন কমলার জুস ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে তা দিয়ে মুখ ধুলে সাথেসাথে ক্লান্তিহীনতা দূর হয় এবং অনুজ্জ্বল কিংবা অয়েলি স্কিন পায় উজ্জ্বল ও আর্দ্রময় ত্বক।

১০. ওজন কমানোঃ

কমলাতে রয়েছে অল্প পরিমাণ ক্যালরি এবং অধিক ফাইবার। যা ওজন বৃদ্ধি রোধ করে।

১১. হার্ট সুস্থতায় সহায়কঃ

কমলা খাওয়ার ফলে ক্লোরেস্ট্রল কমে এবং এতে হার্ট থাকে সুস্থ্য।

১২. জীবাণু মুক্তিঃ

কমলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি। এটি খাওয়ার ফলে দেহে শ্বেতরক্তকণিকা বৃদ্ধি পায় যা জীবাণুর সাথে লড়াই করে।

১৩. ডায়াবেটিকস রোধঃ

কমলাতে যেহেতু অল্প পরিমাণ ক্যালরি রয়েছে তাই এটি প্রতিদিন একটি করে খাওয়ায় রক্তে সুগার পরিমিত থাকে।

১৪. কিডনি স্টোনঃ

প্রতিদিন ১ টি করে কমলা খেলে কিডনিতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। একেবারে নেই বললেই চলে!

১৫. ক্যান্সার রোধঃ

ডি-লাইনোনেনে নামক এক প্রকার যৌগিক পদার্থ কমলাতে পাওয়া যায়। যা স্কিন ক্যান্সার, ব্রেস্ট ক্যান্সার এর সাথে লড়াই করে।

১৬. বুদ্ধি বৃদ্ধিকরঃ

ফলিক এসিড কমলাতে বিদ্যমান। যা বুদ্ধি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

১৭. শান্তিময়ঃ

প্রতিদিন এক গ্লাস কমলার জুস পান করার ফলে এটি উত্তেজনাহীন রাখতে সহায়তা করে। এবং মাথা ঠান্ডা রাখে।

একটি কমলা, এক গ্লাস কমলার জুস আর কমলার খোসার মিশ্রণ! অথচ উপকারে আসে ঢের। অল্প পরিশ্রমে বেশ কিছু উপকার পাওয়ার জন্য কমলা ব্যবহারের বিকল্প নেই।

রূপচর্চা, দেহের বিভিন্ন অঙ্গের যত্ন, রান্না, স্বাস্থ্যটিপস সহ মেয়েদের বিভিন্ন বিষয়ে জানতে আমাদের সাথেই থাকুন। সম্পূর্ণার ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে নিয়মিত আমাদের পোষ্ট পেতে পারেন। আর আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কিংবা আরও আলোচনা করতে চাইলে জয়েন করতে পারেন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে

আপনার মন্তব্য

টি মন্তব্য